বারডেম জেনারেল হাসপাতাল

প্রকাশ: June 6, 2015
birdem logo

বারডেম (Bangladesh Institute of Research and Rehabilitation in Diabetes Endocrine and Metabolic Disorders/BIRDEM) ঢাকার শাহবাগে অবস্থিত একটি বহুমুখী চিকিৎসা সেবা, উচ্চশিক্ষা ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান।

বাংলাদেশ সরকার প্রদত্ত জমিতে সরকারী অর্থানুকুল্যে ১৯৮০ সালে চালু বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির এই কেন্দ্রীয় প্রতিষ্ঠান ‘বারডেম’ তিনটি বৃহৎ ভবনে অবস্থিত। পনেরো তলা একটি ভবনে অবস্থিত হাসপাতালে বর্তমানে রয়েছে ৫৪২টি শয্যা, এর মধ্যে ৮০টি ফ্রি শয্যা দরিদ্র রোগীদের জন্য। প্রতিদিন গড়ে প্রায় ৩০০০ রোগী স্বাস্থ্যসেবার জন্য এখানে আসেন। প্রায় সব ধরনের ক্লিনিক্যাল ও ডায়াগনস্টিক সুযোগ-সুবিধাসহ এটি বাংলাদেশের একটি অন্যতম বৃহৎ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। এছাড়া হাসপাতালটিতে দক্ষ জনবল ও উন্নত যন্ত্রপাতিসহ ক্লিনিক্যাল চিকিৎসা বিজ্ঞানের প্রায় সকল শাখা রয়েছে এবং ডায়াবেটিস নন্ডায়াবেটিস সব রোগীদেরই চিকিৎসা দেয়া হয় তবে ডায়াবেটিস রোগীরা অগ্রাধিকার পেয়ে থাকেন। পূর্ণকালীন নিয়োজিত জনবলসহ বারডেমে রয়েছে একটি পৃথক গবেষণা বিভাগ। বিভিন্ন দেশী ও আন্তর্জাতিক গবেষণা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সহযোগিতায় এসব কর্মকান্ড চলে।

ঠিকানা ও যোগাযোগ
১২২/ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, শাহাবাগ, ঢাকা-১০০০।
ফোন: +৮৮-০২-৮৬১৬৬৪১-৫০, +৮৮-০২-৯৬৬১৫৫১-৬০
ওয়েব: www.birdem-bd.org

birdem

বারডেমসহ দেশের অন্যান্য চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানের জন্য পর্যাপ্ত যোগ্যতাসম্পন্ন লোকবল সৃষ্টির উদ্দেশ্যে ১৯৮৬ বারডেম একাডেমি প্রতিষ্ঠা করা হয়। বারডেম একাডেমিতে ডায়াবেটিস, এন্ডোক্রাইন ও মেটাবলিজম বিষয়ে এম.ফিল, এম.ডি ও পিএইচ.ডি সহ ডিপ্লোমা ও ডিগ্রি কোর্স পরিচালিত হয়। এছাড়া জেনারেল সার্জারি, চক্ষু, মেডিসিন, গাইনি, এনেস্থেসিয়া, ক্রিটিক্যাল কেয়ার মেডিসিন প্রভৃতি বিষয়ে স্নাতকোত্তর কোর্স চালু আছে। ১৯৮২ সালে বারডেম বহুমূত্র প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণে কম্যুনিটিভিত্তিক কর্মসূচি গঠনের লক্ষ্যে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সহযোগী কেন্দ্র হিসেবে দায়িত্ব লাভ করে। ইউরোপের বাইরে এ ধরনের প্রতিষ্ঠান এটাই প্রথম।

বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির ন্যাশনাল কাউন্সিল মনোনিত বোর্ড অব ম্যানেজমেণ্ট (BOM) এর অধীন একজন মহাপরিচালক বারডেমের প্রধান নির্বাহীর দায়িত্বে নিয়োজিত থাকেন। শুধুমাত্র ডায়াবেটিস চিকিৎসা হয় জনগনের এমন ধারণা পাল্টাতে সম্প্রতি হাসপাতাল অংশের নামকরণ হয়েছে’ ‘বারডেম জেনারেল হাসপাতাল’।

বারডেমে রেজিস্টার্ড ডায়াবেটিক রোগীদের চিকিৎসা ও নির্ধারিত কয়েকটি পরীক্ষা বিনামূল্যে করা হয়। ‘ক্রস ফিনান্সিং’ পদ্ধতির মাধ্যমে অর্থাৎ অন্যান্য রোগীদের চিকিৎসা ও ডায়াগনস্টিক সেবা দেয়ার মাধ্যমে অর্জিত আয় ডায়াবেটিক রোগীদের বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবায় ব্যয় করা হয়। রোগীরা ডাক্তারি তদারকি, পরামর্শ, বহুমূত্র বিষয়ক শিক্ষা (সার্বিক স্বাস্থ্য সম্পর্কে মৌলিক ধারণাসহ), পুষ্টি বিষয়ক পরামর্শ, সামাজিক সহযোগিতা এবং প্রয়োজনে পুনর্বাসন পায়। বিনামূল্যে বা স্বল্প মূল্যে ইনসুলিন, ওরাল হাইপোগ্লিসিমিক এজেন্টস ইত্যাদি সরবরাহ করা হয়।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরপ্রান্তে এই হাসপাতালটি অবস্থিত। এই হাসপাতালটি বহুতল বিশিষ্ট তিনটি ভবনে বিভক্ত। উত্তর পার্শ্বের ভবনটি ১৬তলা, দক্ষিণ পার্শ্বের ভবনটি ৮ তলা এবং মাঝের ভবনটি ৫ তলা বিশিষ্ট। বারডেম জেনারেল হাসপাতালটির কয়েকটি ফটক ও প্রত্যেক ভবনে পর্যাপ্ত লিফট ব্যবস্থা রয়েছে।

এই হাসপাতালটিতে আন্ত: বিভাগ ও বহির্বিভাগে রোগীদের সেবা প্রদান করা হয়ে থাকে। ডায়াবেটিস রোগ নির্ণয়ের জন্য মাঝের ভবনে গিয়ে টিকিট ক্রয় করে মল-মূত্র পরীক্ষার জন্য টেষ্ট টিউব ও কোটা সংগ্রহ করে পাশাপাশি অবস্থিত একাধিক টয়লেটের যে কোন একটিতে প্রবেশ করে নমুনা সংগ্রহ করে নির্দিষ্ট স্থানে জমা দেয়ার পর নির্ধারিত সময়ে তা জেনে নিয়ে উপযুক্ত চিকিৎসার জন্য হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কর্তৃক হিষ্ট্রি বই ও আইডি কার্ডের মাধ্যমে পরবর্তী পদক্ষেপগুলো নিতে হয়।

এই হাসপাতালটিতে ৪৫ জন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক রয়েছে। চিকিৎসকগণ ১১টি রোগের সেবা দিয়ে থাকে। ডাক্তারদের চেম্বারগুলো দক্ষিন পার্শ্বের ভবনের ২য় তলায় অবস্থিত। এই হাসপাতালে প্রশিক্ষন প্রাপ্ত ৩০০ জন নার্স রয়েছে।

এই হাসপাতালে অ্যাম্বুলেন্স আছে মোট ৯ টি। এ সেবা পেতে হলে প্রথমে জরুরী বিভাগে গিয়ে জানাতে হবে। এরপর রোগীর তদারককারী ডাক্তারের অনুমতিক্রমে শর্তসাপেক্ষে এ্যাম্বুলেন্স এর ব্যবস্থা করা হয়। যোগাযোগ- ৮৬১৬৬৪১।

You must be logged in to post a comment Login

মন্তব্য করুন