রেড ক্রিসেন্ট ব্লাড ব্যাংক সোসাইটি

প্রকাশ: June 16, 2015
BRCC

১৯৮১ সালে বাংলাদেশে রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচী চালু করে।

কার্যালয়
৭/৫, আওরঙ্গজেব রোড, মোহাম্মদপুর, ঢাকা – ১২০৭।
ফোন: ০২-৮১২১৪৯৭, ০২-৯১১৬৫৬৩।
৬৮৪-৬৮৬ বড় মগবাজার ঢাকা, বাংলাদেশ জাতীয় সদরদপ্তর।
ফোন: +880-2-9116563, +880181-1458524
ওয়েব সাইট: www.bdrcs.org

শাখা
রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির বাংলাদেশে ঢাকা, সিলেট, কুমিল্লা, দিনাজপুর ও যশোরে শাখা রয়েছে।

সুবিধা সমূহ
রেড ক্রিসেন্ট রক্তদান কেন্দ্র একটি সম্পূর্ণ সরকার অনুমোদিত রক্তদান কেন্দ্র। এখানে প্রক্রিয়াকৃত সকল প্রকার রক্ত পাওয়া যায়। রক্তদাতাদের কাছ থেকে রক্ত সংগ্রহ করে তা বিশুদ্ধ করে রক্ত গ্রহীতাদের প্রদান করা হয়ে থাকে। এখানে রক্তের উৎস হিসেবে কেবলমাত্র যারা স্বেচ্ছায় রক্ত দিয়ে থাকে, তাদের কাছ থেকে রক্ত সংগ্রহ করে রক্ত গ্রহীতাদের প্রদান করা হয়ে থাকে। রক্ত পরীক্ষা, স্ক্যানিং, ম্যাচিং ইত্যাদির জন্য রেড ক্রিসেন্ট রক্তদান কেন্দ্র আলিজা এবং (Rapid) প্রযুক্তি ব্যবহার করে থাকে। রক্ত সিডিডিএ ১ নামক ব্যাগে রক্ত সংরক্ষণ করা হয়, যেটিতে রক্ত ৩৫ দিন পর্যন্ত ভাল থাকে এবং এই ব্যাগে রক্ত ৩০সে. তাপমাত্রার মধ্যে থাকে। স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচী আয়োজনে রেড ক্রিসেন্ট ব্লাড সেন্টার তাদের দল পাঠিয়ে যথাসম্ভব সহযোগিতা করার চেষ্টা করে থাকে।
রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি সদস্য হওয়া যায় না। তারা রক্তদানের পর রক্ত দাতাদের এক প্রকার আইডি কার্ড প্রদান করে থাকে, যাতে তারা বুঝতে পারে এই ব্যক্তি তাদের রক্তদান কেন্দ্রে রক্ত দিয়েছে।

রক্তদান প্রক্রিয়া
রক্তদান করতে হলে তাদের ফরম পূরণ করতে হয় যদি রক্তে কোন প্রকার সমস্যা না থাকে তবেই তারা রক্ত দাতাদের কাছ থেকে রক্ত নিয়ে থাকে। রক্ত গ্রহণ করতে হলে মেডিকেল অফিসারের সিল ও স্বাক্ষরযুক্ত লিখিত ব্লাড রিকুইজিশন জমা দিতে হয়, তবেই রক্ত পাওয়া যাবে।

রক্ত সংগ্রহ প্রক্রিয়া
রক্ত সংগ্রহ করার জন্য রেড ক্রিসেন্ট ব্লাড সেন্টারে যোগাযোগ করতে হবে। রক্ত সংগ্রহ করতে হলে নগদের মাধ্যমে রিসিট পূরণ করে ৭০০ টাকার বিনিময়ে খুব সহজেই রক্ত পাওয়া যায়।

সাধারণত সাধারণ মানুষ এবং গরীব অসহায় রোগীদের জন্য রক্ত সরবরাহ করা হয়ে থাকে। যেসব রোগী সরকারি হাসপাতালে ফ্রি বেডে থাকে, তাদের জন্য রক্ত ২৫০ টাকা এবং যেসব রোগী ক্লিনিকে থাকে, তাদের জন্য রক্ত ৪৫০ টাকায় দিয়ে থাকে। থ্যালাসেমিয়া আক্রান্ত রোগীদের জন্য আলাদা বিশেষ ছাড়ের ব্যবস্থা রয়েছে। থেলাসেমিয়া আক্রান্ত রোগীরা যদি কর্তৃপক্ষের বরাবরে আবেদন করে তবে তাদেরকে ৪০% থেকে ৫০% ছাড়ের সুবিধা প্রদান করে থাকে।

You must be logged in to post a comment Login

মন্তব্য করুন