সোলস ব্যান্ডের আত্মারা

প্রকাশ: June 23, 2015
souls jam

সোলস বাংলাদেশের জনপ্রিয় এবং প্রাচীনতম একটি ব্যান্ডদল। ১৯৭২ সালে এই ব্যান্ড দলের যাত্রা শুরু হয়। সর্বপ্রথমে চট্টগ্রামে প্রতিষ্ঠিত হলেও পরে এর কার্যক্রম ঢাকায় স্থানান্তর করা হয়। সোলস এর প্রতিষ্ঠাতা রনি বড়ুয়া। বর্তমান কালে গানের জগতে বড় তারকাদের মধ্যে আইয়ুব বাচ্চু, তপন চৌধুরী, নকীব খান, কুমার বিশ্বজিৎ, পান্থ-কানাই সকলেই সোলস থেকে আগত। ব্যান্ডটি প্রায় ৪০০০ (চার হাজার) এর বেশী লাইভ শো করেছে।

১৯৭২ এর শেষ দিকে তাজুল নকিব খান ব্যান্ডে যোগদানের আগে ব্যান্ড ত্যাগ করে। নকিব খানের পর তাকে দেখে আসেন পিলু খান এবং তপন চৌধুরী। ১৯৭৭-৭৮ এ নাসিম আলী খান এবং আইয়ুব বাচ্চু এই ব্যান্ড দলে যোগ দেন। এই দুইজন তাদের নিজের লেখা এবং সুর করা গানগুলো পশ্চিমা ধাচে পরিবেশন করে শ্রোতাদের মন জয় করেন। ১৯৮০ সালে তারা তাদের প্রথম অ্যালবাম ‘সুপার সোলস’ প্রকাশ করেন। ওটিই ছিল বাংলাদেশের কোন ব্যান্ড দ্বারা প্রকাশিত প্রথম অ্যালবাম। এই অ্যালবামের গানগুলোর মধ্যে ছিল মন শুধু মন ছুঁয়েছে, মুখরিত জীবন। আব্দুল্লাহ আল মামুন মুখরিত জীবন এর খোঁজে গানটির কথা লেখেন। এরপর ১৯৮২ সালে তারা তাদের দ্বিতীয় অ্যালবাম ‘কলেজের করিডোরে” রিলিজ করেন। পাহাড়ের আকাবাকা, কলেজের করিডোরে গান গুলো এই অ্যালবামে ছিল। এরপর পরই নকিব খান ও পিলু খান ব্যান্ড ছেড়ে যান এবং রেনেসার প্রতিষ্ঠা করেন। ১৯৮৭ সালে তারা তাদের তৃতীয় এলবাম প্রকাশ করে যার নাম ” মানুষ মাটির কাছাকাছি”। ১৯৮৮ সালে ”ইস্ট ওয়েস্ট” অ্যালবামটি বের হয়। ১৯৮৯ সালে ” এ এমন পরিচয় ” যা তপন চৌধুরীর সোলসের হয়ে শেষ কাজ ছিল। এরপর ১৯৯২ সালে “আজ দিন কাটুক গানে”, ১৯৯৭ সালে “অসময়ের গান”, ২০০০ সালে আনপ্লাগড ”মুখরিত জীবন”, ২০০২ সালে “তারার উঠোনে”, ২০০৫ সালে “টু-লেট”, ২০০৭ সালে “ঝুট ঝামেলা” এবং ২০১১ সালে “জ্যাম” রিলিজ করে ব্যান্ড দলটি।

Souls band

Souls band2

souls band3

সোলসের বর্তমান লাইন আপে ভোকালে রয়েছেন নাসিম আলী খান, লিড গিটার ও ভোকালে পার্থ বড়ুয়া, ড্রাম ও পারকাশনে আশিক, ব্যাস গিটারে রানা, কিবোর্ডে তুষার গোমেজ, পারকাশনে রঞ্জন দত্ত এবং প্যাড ও ড্রামে মাসুম।

You must be logged in to post a comment Login

মন্তব্য করুন